avatar
+৩ টি ভোট

ডুয়েটে মিকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং (ME) এ কোন বিভাগগুলোর ছাত্ররা ভর্তি হতে পারবে?

ডুয়েটে মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির জন্য কোন কোন ডিপার্টমেন্ট থেকে ডিপ্লোমা সম্পন্নকারী ছাত্ররা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে।

1 টি উত্তর

avatar
+১ টি ভোট

ডুয়েটে মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির জন্য মোট পাঁচটি বিভাগে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং সম্পন্নকৃত স্টুডেন্টরা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে, এই পাঁচটি বিভাগ নিম্নরূপ:


  1. মেকানিকাল টেকনোলজি
  2. পাওয়ার টেকনোলজি
  3. রেফ্রিজারেশন এন্ড এয়ার কন্ডিশনিং টেকনোলজি
  4. মেকাট্রনিক্স টেকনোলজি
  5. শিপ বিল্ডিং টেকনোলজি
  6. মেরিন টেকনোলজি
  7. মেরিন এন্ড মাইন সর্ভেইং টেকনোলজি


এই পাঁচটি বিভাগে যারা গত দুই বছরে সিজিপিএ ৩.০ থেকে ৪.০ এর মধ্যে রেজাল্ট পেয়ে ডিপ্লোমা পাশ করেছে তারাই মেকানিকাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির জন্য আবেদন করতে পারবে।

এরকম আরও প্রশ্ন

avatar
+২ টি ভোট
ডুয়েটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (CE) এ ভর্তির জন্য কোন বিভাগগুলোর ছাত্ররা আবেদন করতে পারবে?
ডুয়েটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগে ভর্তির জন্য কোন কোন ডিপার্টমেন্ট থেকে ডিপ্লোমা সম্পন্নকারী ছাত্ররা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে।
avatar
+২ টি ভোট
ডুয়েটে ইইই (EEE) বিভাগে ভর্তির জন্য কোন কোন বিভাগের ছাত্ররা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে?
ডুয়েটে ইইই (EEE) বিভাগে ভর্তির জন্য কোন কোন বিভাগের ছাত্ররা  ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে?
avatar
+২ টি ভোট
ডুয়েটে কি কি বিভাগ আছে এবং কোন বিভাগের আসন সংখ্যা কতটি?
ঢাকা ইউনিভর্সিটি অব ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড টেকনোলজি (ডুয়েট) এ বর্তমানে কোন কোন ডিপার্টমেন্ট আছে এবং কোন ডিপার্টমেন্ট এ কতটি সিট আছে সেগুলো জানতে চাচ্ছি।
+১ টি ভোট
কোন পানির ট্যাপ এ পানি আশেপাশে ছড়ায় না?
আমি এক ধরনের ট্যাপ দেখেছি যেগুলোতে পানি একটুও ছড়ায় না। সাধারণ ট্যাপ ব্যবহারের সময় ফুল স্পিডে থাকলে অজু করতে গিয়েও শরীর ভিজে যায় কিন্তু ওই ট্যাপ গুলোতে সেটা হয় না।
avatar
+২ টি ভোট
পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান কত হতে কত পর্যন্ত হতে পারে?
পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান ০ থেকে ১ পর্যন্ত হতে পারে।


পাওয়ার ফ্যাক্টর হলো অ্যাক্টিভ/প্রকৃত পাওয়ার এবং অ্যাপ্যারেন্ট/মোট ব্যয়কৃত পাওয়ার এর অনুপাত। ০ বলতে বোঝায় লোড সম্পূর্ণরূপে রিয়্যাক্টিভ, অর্থাৎ বিদ্যুৎ দ্বারা প্রকৃত কোনো কাজ সম্পন্ন হচ্ছে না। ১ বলতে বোঝায় লোড সম্পূর্ণরূপে রিয়েল, অর্থাৎ বিদ্যুৎ সম্পূর্ণরূপে প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে।


সাধারণত, পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান ০.৮ থেকে ১ এর মধ্যে থাকে। পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান যত বেশি হবে, তত বেশি বিদ্যুৎ প্রয়োজনীয় কাজে ব্যবহৃত হবে। পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান কম হলে, বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় অপচয় হয়।


পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান উন্নত করার জন্য ক্যাপাসিটর ব্যাংক ব্যবহার করা হয়। ক্যাপাসিটর ব্যাংক লোডের রিয়্যাক্টিভ কারেন্টকে কমিয়ে পাওয়ার ফ্যাক্টর এর মান বাড়ায়।

২৭৫ টি প্রশ্ন

২৬৭ টি উত্তর

৩০ টি মন্তব্য

৪৩ জন সদস্য

এই মাসের সেরা সদস্যগন

  1. avatar
  2. avatar

সাম্প্রতিক ব্যাজ সমুহ

admin ১২ ৫৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
admin ১২ ৫৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
admin ১২ ৫৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
whoever ১৪ ৫৮ ২১৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
admin ১২ ৫৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
...