বই এবং সিনেমা - প্রশ্ন উত্তর

avatar
+৪ টি ভোট
কোন মুভিতে সর্বপ্রথম পোস্ট ক্রেডিট সিন দেওয়া হয়?

মুভি শেষ হয়ে গেছে এখন ডিরেক্টর, কাস্ট ইত্যাদি নাম উঠতেছে কিন্তু সবাই এখনো বসে আছে। বলছিলাম এমসিইউ এর মুভির কথা। মার্ভেল সিনেম্যাটিক ইউনিভার্স (বা এমসিইউ) এর প্রায় প্রতিটি মুভিতে পোস্ট ক্রেডিট সিন থাকে। মার্ভেল এই ট্রেন্ড এতবেশি ব্যবহার করেছে যে এখন মার্ভেল এর দেখাদেখি অন্যান্ন স্টুডিও এটা ব্যবহার করা শুরু করেছে। তবে প্রথম পোস্ট ক্রেডিট ব্যবহার এর ক্রেডিট মার্ভেল পাবে না। বরং ইতিহাসের প্রথম কোন পোস্ট ক্রেডিট সিন ব্যবহার করা হয় The Silencers (1977) এই মুভিতে। 

avatar
+৪ টি ভোট
স্পয়লার কি?
স্পয়লার হলো কোন মুভি, সিরিজ বা অন্য কিছুর গুরুত্বপূর্ণ কোন তথ্য আগেই ফাস করে দেওয়া। 

মনে করুন আপনি কোন মুভি দেখছেন, একই মুভি আপনার বন্ধু আপনার আগেই দেখে নিয়েছে। এখন মুভিতে কোন ঘটনা ঘটার আগেই কি হবে তা আপনার বন্ধু বলে দিচ্ছে। একেই বলে স্পয়লার। সাপয়লার টার্ম টি শুধু মুভিতে না বরং গল্প, নাটক এমনকি ধাধাতেও থাকতে পারে। মুভি সিরিজ এর বিভিন্ন রিভিউ'এ লেখা হয় স্পয়লার অ্যালার্ট, এর মানে হলো আপনি যদি মুভি বা সিরিজ না দেখে থাকেন তবে উক্ত রিভিউ'এ স্পয়লার আছে যা পড়লে বা দেখলে আপনার মুভি দেখার মজাই নষ্ট হয়ে যাবে।
avatar
+৪ টি ভোট
অ্যানিমে ক্যারেক্টার গুলোর চোখ এত বড় হয় কেন?

অ্যানিমে চরিত্রগুলোর মধ্যে সবার চোখ বড় হয়না। বিশেষ করে ছোট বাচ্চা এবং মেয়ে দের চোখ আকারে বড় করা হয়।


image

একটি অ্যানিমে ক্যারেক্টার


মূলত, সৌন্দর্য প্রকাশ করার জন্য এই কাজ টি করা হয়। যে অ্যানিমে গার্ল এর চোখ যত বড় সে ততই সুন্দরী। সেইসাথে আরো যোগ হয় চোখের কালার এবং অসাধারন ডিজাইন। যা অ্যানিমে ক্যারেক্টার কে করে তুলে আরো চমৎকার।

avatar
+৪ টি ভোট
বক্স অফিসে ডমেস্টিক ও ওভারসিজ বলতে কী বোঝায়?

সহজ ভাষায় বলতে গেলে ডমেস্টিক এবং ওভারসিজ মানে হল দেশি ও বিদেশী। একটি মুভির ইনকাম বোঝানোর জন্য বক্স অফিসের পাশাপাশি এই দুইটি শব্দও ব্যবহার করা হয়।


ডোমেস্টিক (domestic)

বক্স অফিসে একটি মুভি তার নিজ দেশে যতটা রেভিনিউ জেনারেট করতে পেরেছে তা প্রকাশ করা হয় ডমেস্টিক এই শব্দটি দিয়ে। যেমন আমেরিকায় একটি ফিল্ম নির্মাণ করা হলে উক্ত ফিল্ম বা মুভিটি আমেরিকা দেশের মধ্যে টিকিট বিক্রি করে যতটা রেভিনিউ জেনারেট করতে পেরেছে, বক্স অফিসে সেটাকে প্রকাশ করা হবে ডমেস্টিক শব্দ দিয়ে। তবে জেনে রাখা ভালো যে হলিউড মুভির ডোমেস্টিক আমেরিকা ও কানাডা এই দুইটি দেশ মিলে হিসেব হয়। 


ওভারসিজ (overseas)

ওভারসিস মানে হলো আন্তর্জাতিক বক্স অফিস। অর্থাৎ একটি মুভি তার নিজ দেশের বাইরে অন্যান্য দেশে যতটা রেভিনিউ জেনারেট করতে পেরেছে সেটা কে প্রকাশ করা হয় ওভারসিজ এই শব্দটি দিয়ে। ওভারসিস হিসাব করার সময় মুভিটির নিজ দেশ বাদ দিয়ে হিসাব করা হয়।

avatar
+২ টি ভোট
শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের সেরা উপন্যাস গু‌লো কি?

পার্থিব, মানবজমিন এবং দূরবীন ছাড়াও  শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের সেরা উপন্যাসগুলোর মধ্যে রয়েছেঃ

  • ঋণ
  • ঈগলের চোখ
  • আলোয় ছায়ায়
  • তীরন্দাজ
  • দগ্ধ দিনের গল্প
  • অদ্ভুতুরে সিরিজ
  • ঘুণপোকা
  • রূপ-মারীচ রহস্য
  • পারাপার
  • কাগজের বৌ
  • গয়নার বাক্স
  • প্রজাপতির মৃত্যু ও পুনর্জন্ম
  • পদক্ষেপ
  • উজান
avatar
+২ টি ভোট
মুভিতে ডিরেক্টর এবং প্রডিউসার এর মধ্যে পার্থক্য কি?

চলচ্চিত্র নির্মাণের প্রেক্ষাপটে একজন পরিচালক (ডিরেক্টর) এবং একজন প্রযোজকের (প্রোডিউসার) ভূমিকা আলাদা কিন্তু পরস্পর ভূমিকা ওতপ্রোতভাবে জড়িত। 

একজন পরিচালকের যে সমস্ত ভূমিকা ও কার্যক্রম থাকে সেগুলো হলোঃ

একজন পরিচালক একটি চলচ্চিত্রের সৃজনশীল দিকগুলির জন্য প্রাথমিকভাবে রেসপনসিবল। তার শৈল্পিক দৃষ্টিভঙ্গি গঠনে এবং প্রকল্পের সামগ্রিক বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।  প‌রিচাল‌কের ভূ‌মিকা ও প্র‌য়োজনীয়তা নীচে তুলে ধরার চেষ্টা করলামঃ

  • সৃজনশীল দৃষ্টি বল‌তে চলচ্চিত্রের বিষয়বস্তুর দৃষ্টিভঙ্গি, বিকাশ এবং প্রকাশ করার জন্য পরিচালক সরাস‌রি জ‌ড়িত। তারা চিত্রনাট্যকারের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে স্ক্রিপ্টটি ব্যাখ্যা করা এবং এটিকে ভিজ্যুয়াল গল্প বলার মধ্যে অনুবাদ করে। 
  • পরিচালকরা কাস্টিং প্রক্রিয়ায় এমন অভিনেতাদের নির্বাচন করে যারা চরিত্রগুলিকে চিত্রিত করার জন্য এবং তাদের দৃষ্টিকে জীবন্ত করার জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত।
  • পারফরম্যান্স পরিচালনা প‌রিচালক‌দের আ‌রেক‌টি গুরুত্বপূর্ণ কাজ। পরিচালক অভিনেতাদের নির্দেশনা দেন এবং পরিচালনা করেন, তাদের পারফরম্যান্স সরবরাহ করতে সহায়তা করে যা চলচ্চিত্রের দৃষ্টিভঙ্গির সাথে সারিবদ্ধ হয়। 
  • ডিরেক্টররা ক্যামেরার অ্যাঙ্গেল, ফ্রেমিং এবং প্রতিটি শটের সামগ্রিক কম্পোজিশন নির্ধারণ করেন। তারা কাঙ্ক্ষিত ভিজ্যুয়াল শৈলী অর্জন করতে সিনেমাটোগ্রাফারের সাথে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করে।
  • চলচ্চিত্রের সব দিক থেকে তাদের দৃষ্টিভঙ্গি বাস্তবায়িত হয় তা নিশ্চিত করতে পরিচালকরা শিল্প নির্দেশনা, পোশাক ডিজাইন এবং সম্পাদনা সহ বিভিন্ন বিভাগের সাথে সহযোগিতা করেন। 


অপর‌দিকে একজন প্রযোজক প্রাথমিকভাবে একটি ফিল্ম প্রজেক্টের লজিস্টিক্যাল এবং আর্থিক দিকগুলি তত্ত্বাবধানের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। তাদের ভূমিকা চলচ্চিত্র নির্মাণের ব্যবসা এবং অপারেশনাল দিকের দিকে বেশি মনোযোগ দেয়া হয়। 

একজন প্রযোজকের দায়িত্বের মধ্যে রয়েছেঃ

  • প্রযোজকরা চলচ্চিত্রের জন্য প্রয়োজনীয় তহবিল নি‌শ্চিৎ করেন। তারা আর্থিক সহায়তা পেতে বিনিয়োগ, নিরাপদ উৎপাদন চুক্তি বা স্টুডিও বা প্রযোজনা সংস্থাগুলির সাথে কাজ করতে পারে। 
  • প্রযোজকরা চলচ্চিত্রের বাজেট তৈরি ও পরিচালনা করে, বিভিন্ন বিভাগে সম্পদ বরাদ্দ করে এবং প্রকল্পটি আর্থিক সীমাবদ্ধতার মধ্যে থাকে তা নিশ্চিত করে।
  • প্রযোজকরা পরিচালক, চিত্রনাট্যকার এবং বিভাগের প্রধান সহ মূল কর্মীদের নিয়োগ করেন। তারা প্রযোজনা দলকে একত্রিত করে এবং নিয়োগ প্রক্রিয়ার তদারকি করে।
  • প্রযোজকরা উৎপাদনের লজিস্টিক দিকগুলি পরিচালনা করে, যেমন শুটিং এর স্থানগুলি সুরক্ষিত রাখা, পারমিট প্রাপ্ত করা, সময়সূচী পরিচালনা করা এবং সামগ্রিক উৎপাদন সময়রেখার সমন্বয় করা।
  • প্রযোজকরা চলচ্চিত্রের বিতরণ এবং বিপণন কৌশলগুলোর সাথে জড়িত। তারা ডিস্ট্রিবিউশন ডিল সুরক্ষিত করার জন্য কাজ করে এবং দর্শকদের কাছে ফিল্মটি প্রচার করার জন্য মার্কেটিং ক্যাম্পেইন তৈরি করে।


পরিশেষে বলা যায়, পরিচালক যখন ফিল্মের সৃজনশীল দৃষ্টিভঙ্গি এবং সম্পাদনের উপর দৃষ্টি নিবদ্ধ করেন, প্রযোজক ব্যবসায়িক এবং পরিচালনার দিকগুলি নিশ্চিত করেন যাতে প্রকল্পটি বাজেটের মধ্যে সফলভাবে সম্পন্ন হয় এবং এর উদ্দেশ্য দর্শকদের কাছে পৌঁছায়। এটা লক্ষণীয় যে জড়িত এবং দায়িত্বের স্তর নির্দিষ্ট প্রকল্প এবং উৎপাদন আকারের উপর নির্ভর করে পরিবর্তিত হতে পারে।

avatar
+৪ টি ভোট
সবচেয়ে বেশি আইএমডিবি রেটিং প্রাপ্ত মুভি কোনগুলো?

ইন্টারনেট মুভি ডাটাবেজ তথা আইএমডিবি হচ্ছে সিনেমা জগতের তথ্যভাণ্ডার। নিচে আইএমডিবি রেটিং প্রাপ্ত টপ ৫ টি মুভি দেওয়া হলো।


  1. The Shawshank Redemption (1994) দশ এর মধ্যে ৯.৩ রেটিং নিয়ে সর্বকালের সবচেয়ে বেশি রেটিং প্রাপ্ত মুভি হলো এটি। লিড রোলে টিম রবিন্স, মরগ্যান ফ্রিম্যান। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন Frank Darabont। 
  2. The Godfather (1972) ৯.২ আইএমডিবি রেটিংএ দ্বিতীয় স্থানে আছে এই মুভিটি। অনেক পুরনো একটি মুভি। পরিচালনা করেছেন Francis Ford Coppola। 
  3. The Dark Knight (2008) ৯.০ রেটিংএ এই মুভিটি স্থান করে নিয়েছে তৃতীয়তে। সুপারহিরো জনরার এই মুভিটি ডিসি কমিক্স এর অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ক্যারেক্টার ব্যাটম্যান কে নিয়ে। মুভিটি পরিচালনা করেছেন যুগের সেরা পরিচালক ক্রিস্টোফার নোলান (Christopher Nolan)। 
  4. The Godfather: Part II (1974) এটা হলো দ্যা গডফাদার এর সিকুয়েল। এই মুভিটি ৯.০ আইএমডিবি রেটিং পেয়েছে। আর এই মুভিটিও পরিচালানা করেছেন প্রথম পার্ট এর পরিচালক Francis Ford Coppola। 
  5. 12 Angry Men (1957) ১২ জন রাগি লোক, এই মুভিটিও ৯.০ আইএমডিবি রেটিং প্রাপ্ত। অত্যান্ত পুরনো মুভি এটি। মুভিটি পরিচালনা করেছেন Sidney Lumet।
avatar
+২ টি ভোট
VFX কাকে বলে? মুভিতে ব্যবহৃত VFX এর কাজ কি?

ভিএফএক্স(VFX) বা ভিজুয়াল ইফেক্টস এমন একটি প্রক্রিয়া যে প্রক্রিয়ায় রিয়ালস্টিক সিন তৈরির জন্য লাইভ-একশন ফুটেজ এবং সিজিআই(CGI) ফুটেজ একত্রে ম্যানুপুলেট করা হয়। ভিজুয়াল ইফেক্টস ব্যবহার করে লাইভ-একশন ফুটেজ এবং সিজিআই ফুটেজ একত্রে ম্যানুপুলেট করে বাস্তবে শুট করা বিপদজ্জনক, ব্যয়বহুল বা অসম্ভব এমন সিনগুলো তৈরি করা হয়।

avatar
+৩ টি ভোট
CGI এবং VFX এর মধ্যে পার্থক্য কি?
CGI এবং VFX এর মধ্যে মূল পার্থক্য হলো সিজিআই এর মাধ্যমে কম্পিউটার প্রোগ্রাম ব্যবহার করে ফিল্মের কোনো দৃশ্য তৈরি করা হয়। অন্যদিকে ভিএফএক্স ব্যবহার করে ইতিমধ্যে বিদ্যমান ফিল্মের মধ্যে ভিজুয়াল ইফেক্ট দেওয়া হয়।
avatar
+৩ টি ভোট
CGI কাকে বলে? CGI এর কাজ কি?

সিজিআই(CGI) এর পূর্ণরূপ হলো কম্পিউটার জেনারেটেড ইমাজেরি। এটা একধরনের কম্পিউটার টেকনোলজি যার মাধ্যমে কম্পিউটার গ্রাফিক্স ব্যবহার করে মুভির কোনো দৃশ্য তৈরি করা হয়। সাধারণত অবাস্তব এবং বাস্তবে শুট করা অনেক রিস্কি/অসম্ভব এমন দৃশ্য CGI এর মাধ্যমে তৈরি করা হয়।

avatar
+৩ টি ভোট
DC কমিক্স এ DC এর পূর্ণরূপ কি?

নামের দিক থেকে দেখতে গেলে DC কমিক্স এর DC এর কোনো ফুল নাম নেই। তবে নামটা এসেছে Detective Comic এর প্রথম অক্ষর গুলো থেকে।

avatar
+২ টি ভোট
মার্ভেল কমিক্স এর জনক বলা হয় কাকে?

ওয়ান অ্যান্ড ওয়ানলি লিজেন্ড অব সুপারহিরো কমিক্স স্টান লি কে মার্ভেল কমিক্স এর জনক বলা হয়।

avatar
+৩ টি ভোট
হ্যারি পটার এর লেখক কে?

হ্যারি পটারের লেখক জে. কে. রওলিং। হ্যারি পটারের টোটাল সাতটি বই 1997 সাল থেকে 2007 সালেরে মধ্যে প্রকাশিত হয়। সকল বই এর প্রকাশের সাল নিচে দেওয়া হলো:


  1. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা ফিলসফরাস স্টোন - 1997
  2. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা চেম্বার অব সিক্রেটস - 1998
  3. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা প্রিজনার অব আযকাবান - 1999
  4. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা গবলেট অব ফায়ার - 2000
  5. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা অর্ডার অব ফনিক্স - 2003
  6. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা হাফ-ব্লাড প্রিন্স - 2005
  7. হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্যা ডেডলি হ্যালোস - 2007
একটা প্রশ্ন করে নিজে জানুন অন্যকে জানতে সহায়তা করুন

২৬৯ টি প্রশ্ন

২৬১ টি উত্তর

২৯ টি মন্তব্য

৩৮ জন সদস্য

এই মাসের সেরা সদস্যগন

    Nobody yet this month.

    সাম্প্রতিক ব্যাজ সমুহ

    alaminhossain ১৯ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
    easoyeb ১৩ ৫৩ ২২০ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
    whoever ১৩ ৪৯ ২০৮ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
    ShafiqulIslam একটি ব্যাজ পেয়েছেন
    admin ৫০ একটি ব্যাজ পেয়েছেন
    ...